নেচারাল শুকনো ত্বীন ফল বা ডুমুর –৪৫০ গ্রাম
 

নেচারাল শুকনো ত্বীন ফল বা ডুমুর –৪৫০ গ্রাম

ট্যাগ সমূহ: টারিস নেচারাল শুকনো ত্বীন ফল বা ডুমুর –৪৫০ গ্রাম

  • ৳ ১২০০


পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,

وَالتِّينِ وَالزَّيْتُونِ


অর্থ: শপথ! ডুমুর ও জয়তুনের। (পবিত্র সূরা ত্বীন শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ১)

মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যেত্বীননামে একটি পবিত্র সূরা শরীফ নাযিল করেছেন এবং সেখানে ত্বীনের শপথ করেছেন সুবহানাল্লাহ!

পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে-

عَنْ حَضْرَتْ اَبِـيْ ذَرّ رَضِىَ اللهُ تَعَالٰى عَنْهُ كُلُوا التِّينَ فَلَوْ قُلْتُ إِنَّ فاكِهَةً نَزَلَتْ مِنَ الجَنّةِ بِلاَ عَجمٍ لَقُلْتُ هِيَ التِّينُ ، وَإِنَّهُ يَذْهَبُ بِالْبَوَاسِيرِ ، وَيَنْفَعُ مِنَ النِّقْرِسِ

অর্থ: “হযরত আবূ যর রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, জনৈক ব্যক্তি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুবারক খিদমতে ত্বীন ফল (ডুমুর ফল) নিয়ে আসেন। তখন তিনি হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু আনহুম উনাদের খাওয়ার জন্য দিলেন এবং নিজেও খেলেন এবং ইরশাদ মুবারক করলেন, যদি জান্নাত থেকে কোন ফল যমীনে এসে থাকে তবে সেটা ত্বীন (ডুমুর) ফল। কারণ জান্নাতের ফল হবে বীজমুক্ত। ত্বীন অর্শ (পাইলস) রোগের জন্য প্রতিষেধক এবং গেঁটেবাতের জন্য বিশেষ উপকারি(জামিউছ ছগীর লিস সুয়ূতী; মুসনাদে ফিরদাঊস লি দায়লামী)

ত্বীন (ডুমুর) গরম প্রকৃতির ফল এবং শুষ্ক ও ভেজা উভয় ধরণের ডুমুর অন্যান্য ফলের তুলনায় অনেক বেশি পুষ্টিকর শুষ্ক ডুমুর অধিক পুষ্টিগুণে ভরপুর

ডুমুরের উপকারিতা:

১. অর্শ (পাইলস্) ও গিঁটবাতের প্রতিষেধক

২. যকৃতে (লিভারে) ও প্রোস্টেটে জমাটকৃত ময়লা দূর করে

৩. দেহে বিষ প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে

৪. বুক, গলা ও শ্বাসনালীর রুক্ষতা দূর করে

৫. লিভার (কলিজা) সুস্থ্ রাখে ও বিষন্নভাব দূর করে

৬. পাকস্থলিতে জমাটবাধা কফ পরিস্কার করে

৭. শরীরে পুষ্টি সরবরাহ করে

৮. নার্ভ (স্নায়ু) শক্তিশালী করে

কেন খাবেন পবিত্র কুরআনে বর্ণিত ত্বীন (ডুমুর/আঞ্জির) ফল

১. এই ফল নারী-পুরুষের শক্তি বৃদ্ধি করে। 

২. এই ফলে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম রয়েছে যা ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রনে রাখে।

৩. এই ফল রক্তে ক্ষতিকর সুগারের পরিবর্তে ন্যাচারাল সুগার তৈরি করে ব্যালান্স রক্ষা করে।

৪. এই ফল মারণব্যাধি ক্যান্সার থেকে রক্ষা করে।

৫. সম্প্রতি গবেষণায় জানা গেছে ডুমুর/আঞ্জির ফল ব্রেস্ট ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে। ফাইবার সমৃদ্ধ এই ফল খাদ্য তালিকায় রাখার ফলে ৩৪% নারীর মধ্যে ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা কম দেখা গিয়েছে।

৬. এই ফল চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। শিশুদের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে ত্বীন ফল একান্ত অপরিহার্য। 

৭. এই ফল শরীরের অপ্রয়োজনীয় মেদ বা চর্বি কমায়।

৮. এই ফল হার্ট এটাকের ঝুঁকি কমায়।

৯. মরণব্যাধি ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রনে রাখে। ইনসুলিনের ওপর নির্ভরশীল ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য ডুমুর/আঞ্জির ফল খুবই উপকারী।

১০. এই ফল শরীরের ক্যালসিয়ামের শূন্যতা পূরণ করে।

১১. এই ফল গর্ভবতী মা ও শিশুর রক্তশূন্যতা রোধ করে।

১২. এই ফল ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়।

১৩. দুর্বলতায় ভোগেন এমন ব্যক্তির জন্য ডুমুর/আঞ্জির ফল খুবই উপকারী। বিশেষ করে মুখ, জিভ বা ঠোঁট ফাটার সমস্যা থাকলে তা নিরাময় করতে এই ফল সাহায্য করে।

১৪. এই ফলে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকায় কোষ্ঠকাঠিন্য ও পাইলস প্রতিরোধে সহায়তা করে।

১৫. এই ফল শারীরিক ও মানসিক ক্লান্তি দূর করতে সাহায্য করে।

১৬. এই ফল শ্বাসকষ্ট ও হাঁপানি রোগ নিরাময়েও সহায়তা করে।
১৭. যাদের দুধ ও দুধের তৈরি খাবারে অ্যালার্জি আছে তাঁরা ক্যালসিয়ামের ঘাটতির পূরণের জন্য নিয়মিত ডুমুর/আঞ্জির খান। কারণ এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম।

১৮. কাঁচা ডুমুর/আঞ্জির চর্মরোগের ওষুধ হিসেবেও ব্যবহৃত হয়। থেঁতো করে ব্রণ ও মেছতায় নিয়মিত লাগালে তা সেরে যায়।

 

আপনার মূল্যায়ন লিখুন

Note: HTML is not translated!
    খারাপ           ভালো